স্বজনদের দেখতে লন্ডনে গিয়ে করোনায় মৃত্যু

প্রকাশিত: ১০:২১ অপরাহ্ণ, জুলাই ১০, ২০২০

স্বজনদের দেখতে লন্ডনে গিয়ে করোনায় মৃত্যু

বিশেষ প্রতিবেদক: ছেলে, পুত্রবধূ আর নাতি-নাতনিদের দেখতে সম্প্রতি যুক্তরাজ্যে বেড়াতে যান মুহিবুর রহমান (৮০) ও তাঁর স্ত্রী সামছুন্নেছা (৭০)। সেখানে হোম কোয়ারেন্টিনে থাকা অবস্থায় সামছুন্নেছা অসুস্থ হয়ে পড়েন। পরে নমুনা পরীক্ষায় তাঁর শরীরে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ পাওয়া যায়। আজ শুক্রবার ভোরে সেখানকার একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান।

 

ওই দম্পতির বাড়ি মৌলভীবাজারের জুড়ী উপজেলার পূর্ব জুড়ী ইউনিয়নের টালিয়াউরা গ্রামে। তাঁদের ছোট ছেলে দেলোয়ার হোসেন তাঁর স্ত্রী-সন্তান নিয়ে যুক্তরাজ্যের লন্ডনে স্থায়ীভাবে বসবাস করেন।

 

আজ সকালে লন্ডনে বসবাসরত দেলোয়ারের সঙ্গে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুক মেসেঞ্জারে এ প্রতিবেদকের কথা হয়। দেলোয়ার বলেন, গত ২৮ জুন তাঁর মা-বাবা বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইনসের একটি সরাসরি ফ্লাইটে লন্ডনে পৌঁছান। দুজন হোম কোয়ারেন্টিনে ছিলেন। এর দুই দিন পর তাঁর মায়ের জ্বর আসে। স্থানীয় একটি হাসপাতালে পরীক্ষার পর তাঁর করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়।

 

দেলোয়ার জানান, তাঁর মা শ্বাসকষ্টসহ আরও কিছু শারীরিক সমস্যায় দীর্ঘদিন ধরে ভুগছিলেন। হাসপাতালে তাঁকে ভর্তির পর আজ ভোর পাঁচটার দিকে মারা যান।

 

দেলোয়ার কান্নাজড়িত কণ্ঠে বলেন, তাঁদের তিন সন্তান। সন্তানেরা দাদা-দাদিকে কাছে পেয়ে খুশিতে আত্মহারা হয়ে ওঠে। তাঁর মায়েরও ইচ্ছা ছিল নাতি-নাতনিদের কোলে নিয়ে আদর করার। কিন্তু স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলায় তা সম্ভব হয়ে ওঠেনি। শেষ পর্যন্ত তিনি মারাই গেলেন।

 

দেলোয়ার জানান, লাশ হস্তান্তরের প্রক্রিয়া চলছে। জানাজা শেষে সেখানের একটি গোরস্থানে লাশ দাফন করা হবে।

 

জুড়ীনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম/বিপি/কেপি