কেউ গৃহহীন থাকবে না : পরিবেশ মন্ত্রী

প্রকাশিত: 3:23 PM, October 8, 2020

কেউ গৃহহীন থাকবে না : পরিবেশ মন্ত্রী

এমদাদুল হক: পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রী মো. শাহাব উদ্দিন বলেছেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বাধীন বর্তমান গণতান্ত্রিক সরকার নির্বাচনী প্রতিশ্রুতি মোতাবেক গৃহহীন, অসহায় ও দুস্থ জনগণের জন্য বাসস্থান নির্মাণে আন্তরিকভাবে কাজ করছে। এ লক্ষ্যে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়সহ বিভিন্ন মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমে প্রকল্প বাস্তবায়িত হচ্ছে । সকল প্রকল্পের বাস্তবায়ন সম্পন্ন হলে দেশের কোনো মানুষ গৃহহীন থাকবে না।

 

আজ (৮ অক্টোবর) বড়লেখা উপজেলা প্রশাসন কর্তৃক সরকারি বিভিন্ন সংস্থার চারটি প্রকল্পের মাধ্যমে গৃহহীন/অসহায়/দুস্থদের জন্য ৩,৩৬,৯৯,৫০০ (তিন কোটি ছত্রিশ লক্ষ নিরানব্বই হাজার পাঁচশত টাকা) ব্যয়ে নির্মিত ২৬২ টি ঘরের চাবি হস্তান্তর অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতাকালে পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রী এসব কথা বলেন।

 

অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের আশ্রয়ন-২ প্রকল্পের আওতায় ২ কোটি ২৩ লক্ষ টাকা ব্যয়ে নির্মিত ২২৩ টি ঘর, গ্রামীণ দরীদ্র গৃহহীন জনগোষ্ঠীর জন্য দুর্যোগ সহনীয় গৃহ নির্মাণ প্রকল্পের আওতায় দূর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়ের অর্থায়নে ২০১৯-২০২০ অর্থ বছরের টিআর-কাবিতা কর্মসূচির বিশেষ বরাদ্দ থেকে ৭১ লক্ষ ৯৬ হাজার টাকা ব্যয়ে নির্মিত ২৪ টি ঘর , প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের সমতলের ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠীর জীবনমান উন্নয়নে ২০১৯-২০২০ অর্থ বছরে রবিদাস সম্প্রদায়ের জন্য ২২ লক্ষ টাকা টাকা ব্যয়ে নির্মিত ১০ টি পাকা ঘর এবং সমাজকল্যাণ মন্ত্রণালয়ের জাতীয় সমাজকল্যাণ পরিষদের অর্থায়নে চা শ্রমিকদের জীবনমান উন্নয্নে টেকসই আবাসন নির্মাণ প্রকল্পের আওতায়  ২০ লক্ষ ৩ হাজার ৫ শত টাকা ব্যয়ে আধুনিক সুযোগ সুবিধা সম্বলিত নির্মিত ৫ টি ঘরের চাবি হস্তান্তর করা হয়েছে।

 

বড়লেখা উপজেলা নির্বাহী অফিসার শামীম আল ইমরানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত ঘরের চাবি বিতরণ অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান সোয়েব আহমদ, বড়লেখা পৌরসভার মেয়র আবুল ইমাম মোঃ কামরান চৌধূরী, বড়লেখা উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক উপাধ্যক্ষ এ কে এম হেলাল উদ্দিন প্রমুখ।

 

উল্লেখ্য, এর পূর্বে এক অনুষ্ঠানে পরিবেশ মন্ত্রী সমাজসেবা অধিদপ্তর কর্তৃক বাস্তবায়িত চা শ্রমিকদের জীবনমান উন্নয়ন কর্মসূচীর আওতায়  ১৮৭৯ জন চা শ্রমিকের জনপ্রতি ৫০০০/- টাকা হারে মোট ৯৩, ৯৫০০০/- (তিরানব্বই লক্ষ পঁচানব্বই হাজার টাকা)র অনুদানের চেক বিতরণ করেন।